আজ চৌদ্দই ডিসেম্বর: একাত্তরের এইদিনে আকাশ থমকে ছিলো

আজ চৌদ্দই ডিসেম্বর। বিপন্নতার অমোঘ সুরে বাঁধা এক মহার্ঘ অর্কেস্ট্রা। ১৯৭১ সালের মহাকাব্যিক মুক্তিযুদ্ধের প্রতিটি দিনই ছিলো মানবিক-অমানবিক বিভিন্ন অনুভূতির এক মৌলিক আখ্যান। পঁচিশে মার্চ থেকে বর্বর পাকিস্তানি বাহিনীর অমানবিক নির্যাতনের বিরুদ্ধে যে তীব্র সূর্যমুখী প্রতিবাদ শুরু করেন বাঙলার মুক্তিকামী মানুষেরা, তারই সার্থক এপিক শিরোনাম— মুক্তিযুদ্ধ। বাঙলার মানুষের ঐতিহ্যগত চেতনার সাতসুর যেমন গভীরে প্রোথিত এক…

রায় হয়েছে, তবে জনগণের প্রত্যাশা পূরণ হয়নি

১৯৭১ সালের মহাকাব্যিক মুক্তিযুদ্ধে বাঙালি এক অনন্য বিজয় অর্জন করেছিলো। মাত্র নয় মাসের সশস্ত্র যুদ্ধে পাকিস্তানি বর্বর বাহিনীকে পরাজিত করে বাঙালি প্রমাণ করেছিলো স্বাধীনতার দুর্দমনীয় আকাঙ্ক্ষা আর মুক্তির মন্দির সোপানতলে প্রাণ বলিদান দেবার দৃঢ় প্রত্যয়। যে গণহত্যা আর বিভৎস নারী নির্যাতন চালিয়েছিলো পাকিস্তানের অমানুষ সেনাবাহিনী, তার সঙ্গে প্রত্যক্ষ মদদ দিয়েছিলো এদেশীয় রাজাকার, আল-বদর, আল-শামসের কুলাঙ্গারেরা।…

শালপ্রাংসু মহীরূহ অথবা প্রেরণার মাস্টহেড

আজ ১০ ডিসেম্বর। একেবারে গুণে গুণে চল্লিশটি বছর আগে চলে যান। সময়কাল ১৯৭১ সাল। ১০ ডিসেম্বর। বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে বাঙালি— একেবারে চেতনার অগ্নিগর্ভ মশাল জ্বালিয়ে বাঙালি তার স্বাধীনতাকে ছিনিয়ে আনছে, জয় বাঙলা ধ্বনিতে মুখরিত হচ্ছে দশদিক। একাত্তর সাল বাঙালির নির্ভিক প্রেরণার উৎস; কথাটাকে আরও একটু খোলাসা করা দরকার। বাঙালির আত্ম-পরিচয় প্রতিষ্ঠার সংগ্রামটি শুরু হয় অনেক আগে…

আসন্ন নির্বাচন: যুদ্ধাপরাধীদের বিরুদ্ধে নতুন প্রজন্মের লড়াই

আজকাল বিভিন্ন অনুষ্ঠান, সংবাদপত্রে এমনকি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীদের মধ্যেও যে কথাটি সবচেয়ে বেশি আলোচিত হয় তা হলো, এবারের নির্বাচনে নতুন প্রজন্মের ভোটারদের অংশগ্রহণ। জীবনে প্রথমবার ভোটার হতে পারার আনন্দ, দায়িত্ববোধ এবং আসন্ন নির্বাচনে এ বিষয়টির গুরুত্ব বিবেচনা করে একজন নতুন ভোটার হিসেবে লেখাটি লিখছি। আমি জানি, আমার মতো অনেকেরই হয়তো আসন্ন নির্বাচন সম্পর্কে এক রোমাঞ্চকর…