আমাদের অন্ধত্বযাত্রার সূচকসমূহ

একসময় বিপ্লব ছিল জনগণের উৎসব; আমাদের কৈশোরে বিপ্লবের আরেক নাম ছিল মাধবীলতা। আজকের অধ্যাপক-অধ্যুষিত শিক্ষিত পৃথিবীতে বিপ্লবের চারণভূমি হলো ফেসবুক। লাইক-কমেন্ট-শেয়ারের আড়াল থেকে ফেসবুকে এখন বিপ্লব উঁকি দেয় পদ্মপলাশলোচনে। আমাদের অগ্রজ প্রজন্ম জীবনের সান্ত্বনা থেকে শান্তি—সবই খুঁজে পেয়েছিলেন রামমোহন থেকে রবীন্দ্রনাথে, শক্তি চট্টোপাধ্যায় থেকে শামসুর রাহমানে; জীবন জিজ্ঞাসাকে তাঁরা সমর্পন করেছিলেন বিজ্ঞান-সমর্থিত যুক্তিবাদে। হোসেন মিয়ার…

আঙুল ফুলে ধর্মগাছ

প্রশ্নটি হচ্ছে— ধর্ম কার জন্য? একজন ব্যক্তির ধর্ম কী হবে, তা অনেকটাই জন্মসূত্রে কোনো দেশের নাগরিক হবার মতোন। যে ধর্মাবলম্বী পরিবারে যার জন্ম সাধারণত তিনি সে ধর্মেরই অনুসারী হয়ে থাকেন। আবার ধর্মাচরণের ক্ষেত্রে একেক পরিবার একেক ধরনের নীতি পালন করে। পরিবার থেকে শেখা সে প্রভাব ব্যক্তির ওপরও পড়ে। ফলে বোঝা যাচ্ছে ধর্ম সংক্রান্ত আমাদের প্রায়…

বজ্র আঁটুনি ফসকা গেরো

চলতি বছরের দ্বিতীয়ার্ধের হিসাব অনুযায়ী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে সক্রিয় ব্যবহারকারীর সংখ্যা ২ দশমিক ৮৯ বিলিয়ন। এত বিপুল সংখ্যক মানুষকে কোনো একটি প্ল্যাটফর্মে ক্রমাগত সক্রিয় রাখার ইতিহাস মানব সভ্যতার ইতিহাসে আর নেই। হয়তো ডিজিটাল দুনিয়ায় ভবিষ্যতে এমন পরিসংখ্যান আরও তৈরি হবে। কিন্তু তার আগ পর্যন্ত এ কথা নির্দ্বিধায় বলা যায়, আজকের পৃথিবীতে এসব যোগাযোগমাধ্যম সামাজিক, রাজনৈতিক,…

গণমাধ্যমের স্বাধীনতা, গণমাধ্যমের রাজনীতি

সম্প্রতি কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল–জাজিরায় প্রচারিত একটি ডকুড্রামা নিয়ে নানা আলোচনা শুরু হয়েছে। বাংলাদেশের সেনাবাহিনীর প্রধান ও তার পরিবারকে কেন্দ্র করে নির্মিত এই ডকুড্রামাতে প্রধানমন্ত্রীকেও যুক্ত করা হয়েছে নানাভাবে। কিন্তু ইতোমধ্যেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ মূলধারার গণমাধ্যমেও আল–জাজিরার নির্মিত এই ডকুড্রামার নানা মিথ্যাচার ও বিভ্রান্তির সমালোচনা হচ্ছে তথ্য-প্রমাণসহ। যদিও জাতীয় বা আন্তর্জাতিক যে কোনো গণমাধ্যমে প্রচারিত অনুষ্ঠানের কপিরাইট…

ফিফথ কলামের রাজনীতি

স্পেনের গৃহযুদ্ধের সময় ‘ফিফথ কলাম’ শব্দটির প্রচলন হয়েছিলো; পরবর্তীতে আর্নেস্ট হেমিংওয়ে এই নামে একটি নাটকও লিখেছিলেন। বাংলাদেশের রাজনীতিতে এই ফিফথ কলামের চর্চা বহুদিনের। সাম্প্রতিক সময়ে প্রেক্ষিত এমন দাঁড়িয়েছে যে, রাজনীতির অনেকাংশই নিয়ন্ত্রণ করছে এই ফিফথ কলামিস্টরা। ফলে রাজনৈতিক সংস্কৃতির যে সুস্থ ধারা, তা থেকে বহুদূরে ছিটকে পড়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে বেশ চোখে পড়ার মতো…

অধ্যাপক ফাহমিদুল হক, ৫৭ ধারা এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ফাহমিদুল হকের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা করেছেন তাঁর সহকর্মী, একই বিভাগের অধ্যাপক আবুল মনসুর আহমেদ। বিভাগের প্রশাসনিক দ্বন্দ্বের জের ধরে এই মামলা দায়ের করা হয়েছে—গণমাধ্যমসূত্রে এই তথ্য আমরা জানতে পেরেছি। এর সংযুক্তি আরেকটি তথ্য হচ্ছে, মামলাটি দায়ের করার মাত্র তিনদিন আগেই তথ্যপ্রযুক্তি আইনের এই নিপীড়নমূলক ধারাটি…

সন্ত্রাসবাদ নয়, ভিন্নমত বিকশিত হোক

সংযোজন বিভ্রান্ত বুদ্ধিজীবী ও মৌলবাদীদের তোষক ফরহাদ মজহার ‘পুলিশ তুলে নিয়ে গেছে’ জাতীয় একটি নাটক করে ২০১৭ সালে। পরবর্তীতে প্রমাণিত হয় যে, সে নিজেই গা-ঢাকা দিয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ খাড়া করেছিলো। ফরহাদ মজহারের এই ঘটনার প্রেক্ষিতে ০৬ জুলাই ২০১৭ সালে বাংলা ট্রিবিউনে একটি কলাম লেখেন আমার ভীষণ শ্রদ্ধার মানুষ গণমাধ্যমকর্মী ও লেখক প্রভাষ আমিন। ভিন্নমতকে…

গণমাধ্যমের বিরুদ্ধে ৫৭ ধারা

অনেক দিন ধরেই আইসিটি আইনের ৫৭ ধারা নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা চলছে। এই আইন কেবল যে চিন্তার প্রকাশের পথে প্রতিবন্ধক নয়, এর অপপ্রয়োগ হচ্ছে। অবস্থা এমন দাঁড়িয়ে গেছে যে, আইসিটি আইনের এই ৫৭ ধারা যতটা না অন্যায়-অবিচার রোধে ব্যবহৃত হচ্ছে, তার চেয়েও বেশি ব্যবহৃত হচ্ছে ব্যক্তিগত স্বার্থে। আইনের নিজস্ব রাস্তা আছে এবং তার ওপর ভিত্তি করেই আইন চলবে—এমন দাবি আইনজ্ঞরা সব-সময়ই করে থাকেন। কিন্তু…

হতে পারে এটিও একটি বিতার্কিক পাঠ

বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে বিতর্কের মহাবাদলের সামনে কী তপোক্লিষ্টই না দাঁড়িয়ে থেকেছি আমি। বিতর্ক তখন আমার কাছে এক মুনস্ট্রাক অরণ্য—তাকে দেয়া যায় না কিছুই, কেবল নিয়ে আসা যায় ঢের। আমার বলশেভিক চোখে বিতর্কের চক্ষুদান পর্ব সমাপ্ত হবার পর আমি জেনে গেছি শতাব্দীর পর শতাব্দী কিছু সব্বনেশে খশড়া জমা হয়েছে মানব জাতির ভল্টে। অতএব বিতর্ক থেকে বেরোনোর প্রশ্নই…

এটা দর্শনের লড়াই

বর্তমান সময়ে সম্ভবত সর্বাধিক উচ্চারিত শব্দ-যুগল হলো ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা’। রাজনীতি, অর্থনীতি, সমাজনীতি, খেলাধূলা এমনকি বিনোদন জগতেও আজকাল এই শব্দ-যুগল ব্যবহৃত হয়। দুশ্যটি খুব চমৎকার! একদিকে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা’র নামে একের পর এক উৎসব, বক্তৃতা আর বিবৃতি চলছে; অন্যদিকে রামু, নাসিরনগর, বাঁশখালি, গোবিন্দগঞ্জ—একের পর এক সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস ঘটছে। দেশের আদমশুমারী রিপোর্ট অনুযায়ী, ভিন্ন ধর্ম ও জাতিসত্তার মানুষ…

অন্ধকার ভেঙেই যেতে হবে

২০১৫ সালের ৩১ অক্টোবর। আমাদের অভ্যাসগত স্তব্ধতা পুনরায় স্তব্ধ হয়েছিলো। অক্ষম আক্রোশ চেপে আমরা দেখছিলাম আক্রান্ত চিন্তাশীল ও প্রগতিকামী মানুষের সংখ্যাটা ক্রমেই বাড়ছে। একের পর এক নির্দয়ভাবে আক্রান্ত ও নিহত হচ্ছেন দেশের লেখক-ব্লগার-প্রকাশকসহ মুক্তচিন্তার মানুষেরা— বস্তুত, ধারালো অস্ত্রের নিচে আমরা দেখেছিলাম ক্ষত-বিক্ষত ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইল। আজ প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপন হত্যার এক বছর পেরিয়ে গেলেও…

বইমেলা খামচে ধরেছে সেই পুরোনো শকুন

অমর একুশে বইমেলা বাঙালির এক অলৌকিক পবিত্র আয়োজন। একুশের সূর্যমুখী চেতনাকে ধারণ করে বইমেলা আমাদের মাথা নত না করার এক দৃপ্ত প্রত্যয়। ফেব্রুয়ারি মাস এলেই আমরা উদ্বেল হই বইমেলার তরঙ্গে, আমাদের চারপাশে ছড়িয়ে পড়ে নতুন বইয়ের প্রতীক্ষা। সারা বছর এই একটি মেলার জন্য কেবল লেখক-প্রকাশকরাই নন; আগ্রহ নিয়ে বসে থাকেন সারাদেশের নানা প্রান্তের মানুষ। গণমাধ্যম…

‘কেনো’ এবং ‘কেনো নয়’

আমরা সম্ভবত বিনির্মানবাদের জগতে বসবাস করি। অভিমতটি ব্যক্তিগত বলেই এ সম্বন্ধে আমার যুক্তি হলো— সভ্যতার এমন একটি বিন্দুতে আমরা অবস্থান করছি, যেখানে দাঁড়িয়ে আমাদের চিন্তার সম্পূর্ণ ভিন্নধর্মী কোনো ভবিষ্যত আমাদের দৃষ্টিগোচর হচ্ছে না। এর মানে এই নয় যে— একেবারেই ভিন্ন একটি ভবিষ্যত আমরা দেখতে পাই না বা দেখা হবে না তবে আপাত দৃষ্টিতে আমরা পূর্ববর্তী…